বাঙালি সংস্কৃতিকে যেন ভুলে না যায়

নিউটন মন্ডল:  ঢাকার নটর ডেম বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ-এর নিজস্ব ক্যাম্পাসে ড্রামা ও ফিল্ম ক্লাবের উদ্যোগে ঋতুরাজ বসন্তের আগমন উপলক্ষে বসন্তবরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ড্রামা ও ফিল্ম ক্লাবের মডারেটর মি. রেনেট জন পল গমেজ-এর সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ফাদার প্যাট্রিক ড্যানিয়েল গ্যাফনি, সিএসসি। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তা, শিক্ষক, স্টাফ, প্রাক্তন ও অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই ক্লাবের মডারেটর মি. রেনেট গমেজ সকলকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, বসন্ত মানেই উৎসব। দেশ, কাল ও ঐতিহ্যভেদে উৎসব হয় ভিন্ন ভিন্ন। সারাবছর আমরা নানা উৎসবে মেতে থাকি। বসন্ত উৎসব উদযাপন আমাদের আনন্দকে বাড়িয়ে দেয়। ড্রামা ক্লাবের মডারেটর দিনটি পালনের বিশেষ উদ্দেশ্য ব্যক্ত করে বলেন, আমরা যেন আধুনিকতার ছোঁয়ায় গ্রামীণ বাঙালি সংস্কৃতিকে ভুলে না যায়। দেশীয় সংস্কৃতির চর্চা, লালন পালন ও ধারণ করার জন্য সকলকে তিনি আহ্বান জানান।

উপাচার্য ফাদার প্যাট্রিক ড্যানিয়েল গ্যাফনি বলেন, বাঙালির অন্যতম ঐতিহ্যবাহী উৎসব পহেলা ফাল্গুন। শীতের রিক্ততা, শুষ্কতা ভুলিয়ে ফাগুনের আগুন নিয়ে ঋতু-পরিক্রমায় আমাদের জীবন রাঙাতে প্রকৃতিতে ফিরে আসে ঋতুরাজ বসন্ত। বসন্তকে বরণ করে নেওয়ার জন্য বাংলাদেশে দিনটি বিশেষ উৎসবের সাথে পালন হচ্ছে দেখে আমি খুব আনন্দিত। বিশ্বের প্রতিটি দেশে বসন্ত পালিত হয় অত্যন্ত উৎসাহ ও উদ্দীপনায়। প্রতিটি জাতিই সারা বছর অপেক্ষা করে রঙ্গিন ঋতুর জন্য। তাই বসন্ত মানে পূর্ণতা। বসন্ত মানে নতুন প্রাণের কলরব।

মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় পুরো ক্যাম্পাস মুখরিত হয়ে উঠে। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যে ছিল পুঁথিপাঠ, গম্ভীরা, দলীয় সংগীত, আবৃত্তি, একক সংগীত, বাউল গান, ম্যাজিক শো ইত্যাদি।