ডেভেলপারকে জমি দিয়ে চার বছরেও প্রাপ্য ফ্লাট বুঝে পাচ্ছেন না কাফরুলের খ্রিস্টান পরিবারটি

বিডি খ্রিস্টান নিউজ:

জীবন যুদ্ধে যেন আর পেড়ে উঠছেন না ঢাকার উত্তর কাফরুলের এডভোকেট রিটা কুন্তলা গমেজ। তার বাবা মারা গেছেন ২০১০ খ্রিস্টাব্দে। ঢাকায় মাথা গোজার জন্য এক টুকরো জমি কিনেছিলেন তার বাবা। সেখানেই টিনসেট ঘর করে থাকছিলেন তারা। ২০১৪ খ্রিস্টাব্দে ‘ইমাম ডেভেলপার এন্ড বিল্ডার্স’  নামে এক ডেভলপারকে তাদের সাড়ে পাঁচ কাঠা জমি দেন ৯তলা ভবন নির্মাণের জন্য। চুক্তি অনুসারে তাদের ছয় মাসের মধ্যে ১টি ফ্লাট এবং দুই বছরের মধ্যে ১০টি ফ্লাট বুঝিয়ে দেওয়ার কথা। কিন্তু  ডেভেলপারের মালিক ইসাহাক মিয়া একটি ফ্লাটও বুঝিয়ে দেননি। এদিকে চার বছর ধরে ভাড়া বাসায় থাকছেন রিটা, তার মা ও বোন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, চুক্তি অনুসারে রিটাদের অংশের ফ্লাট ২য় তলা, ৪র্থতলা, ৬ষ্ঠতলার ফ্লাট একটিতেও পানি, গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়নি। অথচ, অন্যা তলার ফ্লাটগুলো যেগুলো ইসাহাক মিয়ার সেগুলোর নির্মাণ অধিকাংশই শেষ এবং তিনি ভাড়াটিয়াও উঠিয়েছেন।

গতশুক্রবার রিটা, তার মা ও বোন সহ উত্তর কাফরুলের কয়েকজন খ্রিস্টান নেতা নিয়ে নিজের ফ্লাটে উঠতে গেলে তাদের সাথে খারাপ আচরণ করেন ডেভেলপার ইসাহাক। তারা তাদের অংশের ৪র্থ তলায় একটি ফ্লাটে জিনিসপত্র নিয়ে উঠেন।

ইসাহাকের দাবী, কোট থেকে অর্ডার আছে, জমির মালিক ফ্লাটে উঠতে পারবেন না। তবে তিনি এই ধরনের কোন ডকুমেন্ট দেখাতে ব্যর্থ হয়।

কাফরুল থানার সহযোগিতা চাইতে থানায় ফোন করা হলে শুক্রবার পুলিশ রাত আটটায় রিটাকে এবং ইসাহাককে থানায় ডাকেন। সেখানে পুলিশের সামেন ইসাহাক মিয়া প্রতিজ্ঞা করেছেন তিনি শনিবার সকাল দশটার মধ্যে ৪র্থতলায় রিটা যেখানে (৪র্থ তলায়) উঠেছেন সেখানে পানি, বিদ্যুৎ ও গ্যাসের সংযোগ দিবেন। কিন্তু   এখনো (বুধবার) পর্যন্ত পানি, বিদ্যুৎ ও গ্যাসের সংযোগ দেওয়া হয়নি। বরং আবারো ফ্লাট ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছেন ইসাহাক, বলেন রিটা গমেজ। অন্যদিকে টানা আটদিন বিদ্যুৎবিহীন থাকায় অসুস্থ হয়ে পড়েছেন রিটার মা।

এড. রিটা বিডি খ্রিস্টান নিউজকে বলেন, আমাদের প্রাপ্য ফ্লাটে আমরা উঠেছি। ফ্লাটের কাজ এখনো শেষ করেনি। আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতা চাই যেন আমারা তিন মা যেয়ে নিরাপদে নিজের  ফ্লাটে থাকতে পারি।