মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব

মিনু কোড়াইয়া:

আজও ক্রোধে গর্জে উঠে বাংলার বুক

স্রোতে বহে পদ্মা মেঘনায় হারানো শোক

তোমার রক্তে রইল লেখা বাংলার নাম

আজও কাঁদে আবহমান বাংলার লোক ।।

 

রক্তমাখা আদল দেখি মানচিত্রে

তোমার দেখা স্বপ্ন আজও চোখে ভাসে

বাঁচতে ওরা দেয়নি তোমায় এই মাটিতে

সকল পিতার মুখে তবু মুখটি হাসে ।।

 

সেদিন তোমার বুলেট বিদ্ধ ঝাঝড়া বুকে

ফুটেছিলো বাংলা ভাষা আর্তনাদে

ঘরে ঘরে সকল মায়ে, সকল ভাইয়ে

মুজিব তোমার নামটি বলে আজো কাঁদে ।।

 

এই মাটিতে রক্ত তোমার  যায়নি বৃথা

বীরের কণ্ঠে  আজো বাজে দীপ্ত শ্লোগান

যারাই তোমার নিয়েছিল জীবন কেড়ে

মৃত্যু তাদের করবে তাড়া, হারাবে প্রাণ ।।

 

লাল পতাকা আজো ওড়ে আকাশ জুড়ে

তারই বুকের মধ্যে তোমার রক্ত ছবি

বনের পাখির কন্ঠে বাজে তোমার ব্যাথা

তোমার নামে কাব্যকথা বোনে  কবি।।

 

আর্তনাদে কেঁপেছিল ঘরের দেয়াল

স্তব্ধ বাতাস গুমড়েছিল বুকের মাঝে

যে রক্ত ঝরলো সেদিন মাটির পরে

সেই রক্তে সূর্য সাজে সকাল সাঁঝে ।।

 

তুলেছিলে কণ্ঠে তোমার তুর্য্যধ্বনি,

আশার বাণী শুনিয়েছিলে অবলীলায়

তুমি জাতীর মহান পিতা যুগে যুগে

এমন মানব হোক জন্ম এই বাংলায়।।

 

ছিল তোমার তেজস্ব রক্ত শিরায় শিরায়

প্রতিধ্বনি বেজেছিল বাতাস জুড়ে

অস্ত্র হাতে আসলো ছুটে কিশোর যুবা

তোমার ডাকে ভয় ভাবনা গেল দূরে।।

 

দেশের মায়া জাগিয়েছিলে যাদের প্রাণে

যুদ্ধে নেমে করলো তারা বীরের লড়াই

তোমার কথা রইবে সবার হৃদয় পটে

তোমার নামে লাল সুবজের কেতন ওড়াই।।

 

সকল প্রাণে বাজে তোমার শোকগাঁথা

স্বদেশ মাতার যোগ্য তুমি, ধন্য তুমি,

মরণ পরেও রইলে আজও মৃত্যুজয়ী

তোমার ত্যাগেই গর্বিত এই মাতৃভূমি।।