চিকুনগুনিয়ায় প্যারাসিটামল ও বিশ্রাম নেওয়ার পরামর্শ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

মঙ্গলবার স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, গণমাধ্যমকে বলতে চাই, আপনারা অহেতুক আতঙ্ক সৃষ্টি করবেন না। এটা ভাইরাস, একটি সাধারণ ভাইরাস। এটাকে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য খুব বেশী সময় লাগে না। তিন-চারদিন প্যারাসিটেমল খেলে, বিশ্রাম নিলে এবং পানি খেলেই সেরে যায়।

ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে সংসদের ১৬তম অধিবেশনে মঙ্গলবারের বৈঠকে চিকনগুনিয়া প্রসঙ্গে ৩০০ বিধিতে দেওয়া তিনি এসব কথা বলেন।

চিকনগুনিয়া রোগ ছড়িয়ে পড়লেও আতঙ্কিত হওয়ার মত পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি দাবি করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘জ্বর হলেই জনমনে চিকনগুনিয়া হয়েছে বলে উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়েছে। এ উদ্বেগ সঠিক নয়। সম্প্রতি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের পর্যবেক্ষনে দেখা গেছে, প্রতি ১১ জনের জ্বরের মধ্যে মাত্র ১ জন চিকনগুনিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে। ’

তিনি বলেন, চিকনগুনিয়া কোন মারাত্মক রোগ নয়। আমাদের হাসপাতালগুলো সহায়তা দেয়ার জন্য প্রস্তুত আছে। হেল্প ডেস্ক আছে। যদি কোনো রোগী এ ব্যাপারে সতর্ক হতে চায়, চিকনগুনিয়ার সাথে ডেঙ্গু রোগের পরীক্ষা করতে পারবে। তিনি বলেন, আমাদের সরকার সবসময়ই সচেতন আছে। এ ধরনের রোগকে প্রতিরোধ করার জন্য যা যা করার দরকার তা আমরা করব।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান , এটির উৎপত্তি হয় এডিস মশা থেকে। মশা নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব হল সিটি করপোরেশনের। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় এডিস মশা নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। এটির দায়িত্ব কিন্তু কোনোভাবেই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে নয়। তারপরেও দায়িত্ববোধ আছে বলেই ইতোমধ্যে বেশ কয়েকমাস ধরেই আমরা এ রোগের নিরাময় এবং সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য কাজ করে যাচ্ছি।

প্রসঙ্গত, গত কয়েক মাসে সারা দেশে অনেক মানুষ চিকনগুনিয়া হয়েছেন এবং জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। চিকিৎসকরা বলছেন, মশার কামড় থেকে রক্ষা করতে পারলে এই রোগ হতে রক্ষা হতে দূরে থাকা যাবে।