অধার্মিকের ধর্মকথা-৩

খোকন কোড়ায়া:

সব প্রার্থনার রাজা প্রভুর প্রার্থনা

প্রার্থনা হল ঈশ্বরের সঙ্গে কথা বলা, নিজেকে ঈশ্বরের কাছে সমর্পণ করা, নিজের সুখ-দুঃখের কথা ঈশ্বরের সঙ্গে শেয়ার করা, সর্বোপরি ঈশ্বরের কাছে কিছু যাচনা করা। আমাদের মনের কথা আমরা যেভাবেই ঈশ্বরকে বলিনা কেন সেটাই প্রার্থনা।  তবে কিছু বিধিবদ্ধ প্রচলিত প্রার্থনা আছে যে প্রার্থনাগুলি আমরা প্রতিনিয়ত করে থাকি। যেমনঃ প্রভুর প্রার্থনা, প্রনাম মারীয়া, ত্রিত্বের জয়, প্রাতঃকালীন প্রার্থনা, সান্ধ্যকালীন প্রার্থনা, অনুতাপ  নিবেদন, ভক্তি নিবেদন, আশা নিবেদন, প্রেরীতগণের শ্রদ্ধামন্ত্র এরকম আরো অনেক প্রার্থনা। তবে আমার বিবেচনায় সবচেয়ে উত্তম প্রার্থনা হল প্রভুর প্রার্থনা। এই প্রার্থনাটি উত্তম হবার কারণ আমাদের প্রভু যীশু খ্রীষ্ট নিজেই এই প্রার্থনাটি আমাদের শিখিয়ে গেছেন। দ্বিতীয়ত: একজন খ্রীষ্ট বিশ্বাসী হিসেবে ঈশ্বরের কাছে আমাদের যেটুকু চাওয়ার আছে তার সবই রয়েছে এই প্রার্থনায়।

যীশুর একজন শিষ্য কিভাবে ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করতে হবে জানতে চাইলে যীশু বললেন, এইভাবে তোমরা পিতার কাছে প্রার্থনা করবে : “হে আমাদের স্বর্গস্থ পিত: তোমার নাম পূজিত হোক, তোমার রাজ্য প্রতিষ্ঠিত হোক, তোমার ইচ্ছা যেমন স্বর্গে তেমনি মর্তেও পূর্ণ হোক। আমাদের ্দৈনিক অন্ন অদ্য আমাদিগকে দাও, আমরা যেমন অপরাধীকে ক্ষমা করি তেমনি তুমিও আমাদের অপরাধ ক্ষমা কর, আর আমাদিগকে প্রলোভনে পড়িতে দিওনা কিন্তু অনর্থ হইতে রক্ষা কর। আমেন।”

এই প্রার্থনায় ঈশ্বরকে আরাধনা করার কথা বলা হয়েছে। ঈশ্বরের রাজ্য প্রতিষ্ঠিত হওয়া অর্থাৎ ঈশ্বরের রাজ্যের বিস্তার লাভের কথা তথা খ্রীষ্টধর্মের বিস্তার লাভের কথা বলা হয়েছে। বলা হয়েছে ঈশ্বর স্বর্গে যেমন রাজা, মর্তেও তাকে সেভাবে মান্য করা হোক। বলা হয়েছে প্রতিদিনের খাবার অর্থাৎ প্রতিদিন আমার যতটুকু প্রয়োজন ততটুকুই যেন ঈশ্বরের কাছে চাই, তার বেশী নয়। ঈশ্বরের কাছে পাপের জন্য ক্ষমা চাওয়া হয়েছে তবে শর্ত আছে, আমাদের কাছে যারা অপরাধ করেছে তাদের আমরা যেভাবে ক্ষমা করি, ঈশ্বর ঠিক সেভাবেই আমাদের ক্ষমা করবেন। আমরা দুর্বল মানুষ, সহজেই আমরা প্রলোভনে পড়ি, পাপে নিমগ্ন হই। এই প্রার্থনায় ঈশ্বরের কাছে সাহায্য চাওয়া হয়েছে তিনি যেন আমাদের প্রলোভন ও পাপ থেকে রক্ষা পেতে সাহায্য করেন। সবশেষে বলা হয়েছে ঈশ্বর যেন আমাদের সমস্ত বিপদ থেকে রক্ষা করেন।

প্রভুর প্রার্থনা একটি পরিপূর্ণ প্রার্থনা। আসুন প্রতিদিন আমরা যতবার পারি এই প্রার্থনাটি বলি এবং ঈশ্বরের সঙ্গে সংযুক্ত থাকি।

লেখক: সাহিত্যিক ও ব্যবসায়ী

আরো পড়ুন: অধার্মিকের ধর্মকথা-২